ফাইভ মিনিট ইউনিভার্সিটি একটি ফেসবুক নির্ভর বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদালয়ের কিছু শিক্ষার্থীর উদ্যাগে ভিন্নধর্মী এই বিশ্ববিদ্যালয় যাত্রা শুরু করে ২০২০ সালের জুন মাসে। মূলত করোনার মধ্যে কিভাবে সময়কে কাজে লাগানো যায় সেই চিন্তা থেকেই এই বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ শুরু হয়।

শুরুতে ব্যাঙ্গাত্মক ধারাতে থাকলেও পরবর্তীতে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের আমূল পরিবর্তন ঘটে। বর্তমানে এই বিশ্ববিদালয়ে অনলাইনে বিভিন্ন কাজকর্ম সংক্রান্ত পোস্ট আপলোড হচ্ছে।

ফাইভ মিনিট ইউনিভার্সিটি কি কি পড়ায়?

এই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানোর জন্যে নির্দিষ্ট সিলেবাস নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান উদ্দেশ্য যা কাঠামোতগত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানো হয়না তা শেখানো। ছোট ছোট বিষয় যেমন কিভাবে গুগল সার্চ করবেন, কিভাবে কুরিয়ার করবেন এ ধরনের ছোট ছোট বিষয় নিয়ে কাজের পরিকল্পনা রয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের।

দেশের বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সংযুক্ত করে এই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষাকে ছড়িয়ে দিতে চায় সর্বত্র। আমাদের চাওয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের যে গৎবাঁধা ধারণা সেখান থেকে বেরিয়ে এসে মানুষ শেখাকেই জরুরী মনে করবে।

যারা যুক্ত ফাইভ মিনিট ইউনিভার্সিটির সাথে

এই বিশ্ববিদালয়ে যেহেতু নির্দিষ্ট গন্ডি নেই ফলে বিশ্বের সকল প্রান্তের মানুষ এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে সম্পর্কিত। বর্তমানে বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সচল রাখার চেষ্টা করছেন।

অর্জন ও ব্যর্থতা

ফাইভ মিনিট বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্জন খুব দ্রুততম সময়ে এটি মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে। ব্যর্থতা হলো সেই জায়গাটা ধরে রাখা সম্ভব হয়নি।

বর্তমান পরিকল্পনা

যদিও আগেই ঘোষণা করা হয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন সিলেবাস নেই আমরা নির্দিষ্ট কোন বিষয়ের নাম বলতে চাই না। তারপরও শেখার ধারা ঠিক রাখার স্বার্থে আমরা নির্দিষ্ট কিছু টপিক ঠিক করেছি।

  • Coursera Course
  • Web Devlopment
  • SEO
  • Digital Marketing

এছাড়াও ফাইভ মিনিট ইউনিভার্সিটি গ্রুপের মাধ্যমে আগ্রহী শিক্ষার্থী জোগাড় করা আমরা নিন্মোক্ত জিনিসগুলোর পেইড ভার্সন কিনতে চাই।